যে খাবার মাইক্রোওভেনে কখনোও গরম করবেন না

প্রযুক্তির নতুন নতুন উদ্ভাবন আমাদের জীবনকে সহজ করে দিয়েছে। প্রতিদিনই খাবার গরম করতে আমরা মাইক্রোওভেন ব্যবহার করে থাকি। বিশেষ করে কর্মজীবি ব্যক্তিদের মাইক্রোওভেন ব্যতীত অন্যকোন সহজ পন্থা নেই।

কিন্তু! অনেকেই জানেন না যে, মাইক্রোওভেনে কিছু খাবার গরম করলে খাদ্যগুণ নষ্ট হয়ে যায়। আবার খাবারও খারাপ হয়ে যায়। তবে চলুন জেনে নেওয়া যাক কোন খাবারগুলো মাইক্রোওভেনে গরম করা যাবে নাঃ

পাফ পেস্ট্রি

পাফ পেস্ট্রি বা বাটার দেওয়া কোনো কিছু মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না। এতে খাবারের স্বাদ চলে যায়।

পিৎজা

পিৎজা আমরা গরম করে খাই। কিন্তু পিৎজা তৈরি হওয়ার পর আবার গরম করলে পিৎজা ব্রেড শক্ত হয়ে যায়। তাই গরম করে নয়, কষ্ট করে ঠাণ্ডা পিৎজাই খান।

বার্গার

দরকার হলে টোস্টারে গরম করুন কিন্তু মাইক্রোওভেনে নয়। কারণ, পাউরুটি তৈরির সময় এটি পোড়ানো হয়। এজন্য পুনরায় গরম না করাই ভালো।

ডিম দেওয়া কোনো খাবার

ডিম দেওয়া কোন খাবার মাইক্রোওভেনে গরম করবেন না। তবে ডিম মেশানো থাকলে কোন সমস্যা নেই।

মাছ

আমরা অনেকেই মাছের ঝোল মাইক্রোওভেনে গরম করে থাকি। এটা থেকে বিরত থাকাই শ্রেয়। কারণ, এতে খাদ্যগুণ কমে যায়।

দুধের কোনো খাবার

দুধের তৈরি কোন খাবার মাইক্রোওভেনে কখনো গরম করবেন না। এতে খাদ্যগুণ নষ্ট হয়। অনেক সময় খাবার জিনিষ নষ্টও হয়ে যায়।

নরম খাদ্য

হালকা কোন কেক বা খাবার মাইক্রোওভেনে গরম করা যাবে না।

বেবিফুড

অনেকেই ছোট বাচ্চাদের খাবার মাইক্রোওভেনে গরম করে খাওয়ান। মাইক্রোওভেনে গরম করা খাবার ছোট বাচ্চাদের খাওয়ানো ঠিক নয়। এতে ক্ষতির আশংকা থাকে।

Leave a Reply

আপনার মন্তব্য লিখুন

আপনার মন্তব্য লিখুন
এখানে আপনার নাম লিখুন